ওয়েবসাইট পাবলিশিং হোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ Hosting

ওয়েবসাইট পাবলিশিং এর ধাপ হোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। ওয়েব হোস্টিং গুরুত্বপূর্ণ ব্যাখ্যা কর Hosting

হোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ ওয়েবসাইটের পোস্টিং পাবলিকেশনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ধাপ নিয়ে আজকে আলোচনা করা হবে আমার এই সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়লে আপনার সঠিক একটি ধারনা পেয়ে যাবেনহোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ

ওয়েবসাইট পাবলিশিং হোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ Hosting

ইন্টারনেটে ওয়েবের ফাইলগুলো কোনো সার্ভারে রাখাকে ওয়েব হোস্টিং বলা হয়। ওয়েব হোস্টিং হলো স্থান (অর্থাৎ সার্ভার স্পেস) যেখানে টেক্সট, গ্রাফিক্স, অডিও, ভিডিও সংবলিত ওয়েব পেইজে রাখা হয়। ওয়েব হোস্টিং ছাড়া ওয়েবসাইট প্রদর্শিত হয় না তাই হোস্টিং ওয়েবসাইট পাাবলিকেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ।
প্রশ্ন. হোস্টিং ওয়েবসাইট পাবলিকেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ- বুঝিয়ে লেখ

উত্তর: ইন্টারনেটে ওয়েবের ফাইলগুলো কোনো সার্ভারে রাখাকে ওয়েব হোস্টিং বলা হয়। ওয়েব হোস্টিং হলো স্থান (অর্থাৎ সার্ভার স্পেস) যেখানে টেক্সট, গ্রাফিক্স, অডিও, ভিডিও সংবলিত ওয়েব পেইজে রাখা হয়। ওয়েব হোস্টিং ছাড়া ওয়েবসাইট প্রদর্শিত হয় না তাই হোস্টিং ওয়েবসাইট পাাবলিকেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ।
বন্ধুরা আরো কিছু কথা হোস্টিং পাবলিশের বিষয়ে যেমন। হোস্টিং পাবলিশিং আপনি কোথায় করবেন আপনি যে কোন একটি হোস্টিং কোম্পানির ওয়েব সাইট থেকে আপনার যে ওয়েবসাইট আছে তার জন্য আপনাকে হোস্টিং কিনতে হবে এই প্যাকেজ গুলোর মধ্যে থাকে আপনার এক বছরের প্যাকেজও থাকে আপনার এক মাসের ও প্যাকেজ থাকে আপনি চাইলে এক মাসে প্যাকেজ নিয়ে আপনার কি ওয়েবসাইট বা আপনার হোস্টিং করতে পারেন আর একটি হোস্টিংয়ের মাধ্যমে আপনার ভিডিও পোস্ট আর্টিকেল সকল কিছু এখানে করতে পারবেন। হোস্টিং বিষয় যদি আরো কোন বিষয়ে ধারণা দরকার হয়ে থাকে চাইলে আপনি ইউটিউব থেকেও পোস্টিং পাবলিকেশন বিষয়ে জানতে পারবেন। পাবলিশিং বিষয় হল আপনাকে প্রথম হোস্টিং কিনতে হবে তারপর হোস্টিং এর জন্য একটি ডোমেন নিতে হবে তারপর আপনি ওই ডমেণ্টা আপনার হোস্টিং এর সাথে কানেক্ট করে আপনার হোস্টিং পাবলিশিং হিসেবে কাজে আসবে।

হোস্টিং কি?

হোস্টিং হল একটি স্পেস যেখানে কোন ফাইল রাখলে তা পৃথিবীর যে কোন প্রান্ত থেকে অ্যাক্সেস করা যায়। আমরা ইন্টারনেট এ যত ফাইল, তথ্য, উপাত্ত বা ওয়েবসাইট দেখতে পাই সব কিছুই একটা হোস্টিং সার্ভার এ রাখা থাকে যেখানে ২৪ ঘণ্টা দ্রুত গতি সম্পূর্ণ ইন্টারনেট সংযোগ এবং সার্ভার সবসময় সচল রাখার জন্য অনেক লোক কাজ করে। হোস্টিং এ ফাইল বা ওয়েবসাইট রাখলে ২৪ ঘণ্টা এগুলো লাইভ থাকে এবং World wide  যে কেউ এগুলো অ্যাক্সেস করতে পারবে ।

হোস্টিং এর প্রকারভেদ

হোস্টিং সাধারনত ৪ প্রকার হয়, যেগুলোর প্রত্যেকটির আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট রয়েছে ।

শেয়ারর্ড হোস্টিং (Shared Hosting)

ভিপিএস সার্ভার / হোস্টিং (VPS = Virtual Private Server)

ডেডিকেটেড সার্ভার  (Dedicated Server)

রিসেলার হোস্টিং (Reseller Hosting)

শেয়ারর্ড হোস্টিং

একটি সার্ভারের রিসোর্স যখন একাধিক ইউজার এক সাথে ব্যবহার করে অর্থাৎ রিসোর্স শেয়ার করে তখন তাকে শেয়ারর্ড হোস্টিং বলে।একাধিক ইউজার একসাথে ব্যবহার করায় শেয়ারর্ড হোস্টিং এর দাম অনেক কম হয় ।  শেয়ারর্ড হোস্টিং সাধারণত যারা নতুন ব্লগিং বা ওয়েবসাইট তৈরি করে তাদের জন্য বেস্ট । অনেক সময় বড় বড় কোম্পানী গুলো ফ্রী তে তাদের শেয়ার হোস্টিং সার্ভিস দিয়ে থাকে।

ভিপিএস হোস্টিং

VPS (Virtual Private Server) এর স্পীড শেয়ারর্ড হোস্টিং এর থেকে বেশি হয় । ভিপিএস হোস্টিং এর জন্য আলাদা ভাবে সার্ভারে Ram,Cpu,Storage ভাগ করা থাকে যার জন্য এটি অনেক ফাস্ট এবং সিকিউর হয়। ওয়েবসাইট এর ভিজিটর যদি মোটামুটি বেশি হয় সেক্ষেত্রে VPS হোস্টিং ব্যবহার করাই ভালো।

ডেডিকেটেড সার্ভার

একটা পুরো সার্ভার যখন কারো সাথে শেয়ার না করে একাই ব্যবহার করা হয় তখন তাকে ডেডিকেটেড হোস্টিং বলা হয়। সহজ ভাষায় বললে একটি পুর পিসি কে server হিসাবে যখন শুধু মাত্র একজন ইউজার ব্যবহার করে তখন তাকে ডেডিকেটেড হোস্টিং বলে।

রিসেলার হোস্টিং

কোন কম্পানি থেকে যখন অন্য কোন কম্পানি বা ব্যক্তি একটি হোস্টিং সার্ভিস নিয়ে নিজেই প্যাকেজ কাস্টমাইজ করে অন্য দের কাছে ReSell করে তখন সেটাকে রিসেলার হোস্টিং বলে ।

ওয়েবসাইট পাবলিশিং এর বিভিন্ন ধাপ

ওয়েবসাইট পাবলিশিং কি? (What is Website publishing?)
ওয়েবসাইট পাবলিশিং হলাে ইন্টারনেটে কনটেন্ট বা বিষয়বস্তু প্রকাশ করার একটি প্রক্রিয়া। নির্মাণকৃত ওয়েবসাইট ইন্টারনেটে প্রকাশ করাকেই বলা হয় ওয়েবসাইট পাবলিশিং।

একটি ওয়েবসাইট তৈরির মূল উদ্দেশ্য হল সেটি যেন বিশ্বের যে কোন স্থান থেকে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে ব্যবহারকারী দেখতে পারে। একটি ওয়েবসাইটকে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব বা ইন্টারনেটে প্রকাশের প্রক্রিয়াকেই ওয়েব সাইট পাবলিশিং বলা হয়ে থাকে। এজন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার পর সেটিকে সার্ভারে সংরক্ষণ করতে হয় (যেটিকে হোস্টিং বলা হয়ে থাকে) এবং পাশাপাশি এটিকে সনাক্ত করার জন্য এর অদ্বিতীয় নামকরণের প্রয়োজন হয় (যেটি ডোমেইন নেম হিসাবে অভিহিত)।

ওয়েবসাইট পাবলিশিং এর বিভিন্ন ধাপ (Steps of Website publishing)
কোনো ওয়েবসাইট পাবলিশ করার জন্য নিম্নলিখিত ধাপগুলো সম্পন্ন করতে হয়–

১। ওয়েবপেইজ ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট (Webpage design and development)
ওয়েবসাইটের কনটেন্টগুলো বিভিন্ন পেজে কিভাবে প্রদর্শিত হবে তা ডিজাইন করাকে ওয়েবপেইজ ডিজাইন বলা হয়। ওয়েবপেইজ ডিজাইন সাধারণত গ্রাফিক্স সফটওয়্যার যেমন ফটোশপ দিয়ে করা হয় এবং তা পরবর্তীতে HTML ব্যবহার করে ওয়েবপেইজ তৈরি করা হয়। এছাডা বিভিন্ন সার্ভার সাইট স্ক্রিপটিং ভাষা ব্যবহার করে ডেটাবেস থেকে ডেটা ওয়েবপেইজে প্রদর্শন করা হয়। অর্থাৎ এই ধাপে ওয়েবপেইজ ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট করে একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়।

২। ডেমেইন নেইম রেজিস্ট্রেশন (Domain name registration)
প্রথমে ওয়েবসাইটের সুন্দর একটি নাম যা সহজেই মনে রাখা যায় এবং অর্থবোধক হয় তা নির্বাচন করে সেই নামের ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করে এমন অনেক কোম্পানি রয়েছে। কোম্পানিগুলোর নিজস্ব কিছু নিয়মকানুন এবং ফি নির্ধারিত আছে। যে কেউ ফি পরিশোধ করে পছন্দ মতো নামে ডোমেইন নেইম রেজিস্ট্রেশন করতে পারে। রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে যেসব বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে। যে নামে রেজিস্ট্রেশন করতে ইচ্ছুক সে নাম অন্য কেউ ব্যবহার করে কিনা? একই নামে দুটি রেজিস্ট্রেশন হয় না। রেজিস্ট্রেশনটি নিজের নামে নাকি কোম্পানির নামে হবে। ডোমেইনের সকল প্রশাসনিক ক্ষমতা, বিল ইত্যাদি কার নামে হবে। কার মাধ্যমে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করানো হবে। বিলিং পদ্ধতি কী হবে তা নির্ধারণ করতে হবে।

৩। ওয়েব সার্ভারে ওয়েবপেইজ হোস্টিং
ওয়েবসাইটের জন্য তৈরিকৃত ওয়েবপেইজ গুলোকে একটি রেজিস্ট্রেশনকৃত ডোমেইন এর সাপেক্ষে কোন ওয়েব সার্ভারে হোস্ট করাকে ওয়েবপেইজ হোস্টিং বলা হয়। ওয়েব সার্ভার বলতে বিশেষ ধরনের হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারকে বুঝায় যার সাহায্যে ঐ সার্ভারে রাখা কোনো উপাত্ত/তথ্য ইন্টারনেটের মাধ্যমে এক্সেস করা যায়। সারা বিশ্বে অনেক হোস্টিং সার্ভিস প্রোভাইডার রয়েছে যারা অর্থের বিনিময়ে ব্যবহারকারীর প্রয়োজন অনুযায়ী হোস্টিং সার্ভিস প্রদান করে। অর্থের বিনিময়ের পাশাপাশি বিভিন্ন কম্পানি আছে যারা ফ্রি হোস্টিং সার্ভিস প্রদান করে।

৪। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (Search engine optimization)
হোস্টিংকৃত ওয়েবসাইটটি আরো বেশি প্রচারমুখী করার জন্য ওয়েবসাইটটিকে সার্চ ইঞ্জিনের সাথে সংযুক্ত করতে হয়। এটা একটি অপশনাল ধাপ।

বন্ধুরা আমার এই পোস্টটা পড়ে হয়তো আপনাদের যদি কোন উপকার হয়ে থাকে বা হোস্টিং পাবে কিংবা ওয়েবসাইট পাব্লিকেশন বিষয়ে একটু উপকার হয়ে থাকে তো অবশ্যই আমার এই পোস্টটি শেয়ার করে দেবেন যারা জানে না তারা যেন। এবং আপনি কমিটি জানিয়ে দিবেন আপনার কাছে কেমন লেগেছে এবং আপনার কোন অজানা হোস্টিং বিষয়ে তথ্য থাকলে তাও আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।


About the Author: Nazmul Hossain

আমি নাজমুল । আমি বাংলাদেশের রাজধানী শহর ঢাকা তে বসবাস করি। বর্তমানে আমি চাকরী করছি। আমার চাকরী পাশাপাশি আমি অনলাইনে লেখা লেখি করতে পছন্দ করি। বিশেষ করে টেকনোলোজি বিষয়ে লেখা লেখি করতে আমার ভাল লাগে। তাই আপনাদের জন্য আমি এই ওয়েবসাইট টি তৈরি করেছি। এখানে আপনি বাংলাদেশের অনালাইন সম্পর্কিত প্রায় সকল ধরনের তথ্য খুজে পাবেন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *