কেমন হবে দেখুন: Redmi Note 10 Pro এটির ভাল এবং খারাপ দিক

কেমন হবে দেখুন: Redmi Note 10 Pro এটির ভাল এবং খারাপ দিক

রেডমির নোট সিরিজ বরাবরই মোবাইল ফোন ক্রেতাদের কাছে জনপ্রিয়। বর্তমান বাজারে রেডমির লেটেস্ট ফোন হলো Redmi Note 10 Pro । এই ফোনও তাই চাহিদার শীর্ষে রয়েছে। এই ফোন অফারও করছে বেশ দারুন কিছু । আজকে এই ফোন এর বিস্তারিত সব জানব। কি কি অফার করছে, দাম কত রয়েছে আর কেনই বা এটি সকলের পছন্দের তালিকায় রয়েছে।

Redmi Note 10 Pro এর দাম কত?

Redmi Note 10 Pro আমাদের দেশে Official ও Unofficial উভয়ভাবেই পাওয়া যাচ্ছে। বরাবরই Unofficial ফোনগুলোর দাম Official ফোনগুলো থেকে কম হয়ে থাকে। তবে Official ফোন নিবেন নাকি Unofficial ফোন নিবেন তা একান্তই আপনার সিদ্ধান্ত। 

Official Price:

6/64 GB =27000 টাকা

6/128 GB = 28000 টাকা

8/128 GB = 30000 টাকা

Unofficial Price: 

6/128 (Indian) = 23500-24500 টাকা

8/128 (Indian) = 26500 টাকা

(সময়ের সাথে দাম উঠা নামা করতে পারে )

বিশেষ দ্রষ্টব্য- এই তথ্যগুলো বিশ্বাসযোগ্য সোর্স থেকে নেওয়া হয়েছে এবং Unofficial ফোনগুলোর দাম প্রতিনিয়ত উঠানামা করে থাকে। তাই Unofficial ফোন কেনার ক্ষেত্রে যে দোকান থেকে কিনবেন তাদের সাথে যোগাযোগ করে ওই সময়ের সঠিক দাম জেনে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হলো। 

দাম তো জানা হলো। এবার আসা যাক এই দামে এই ফোন কি কি অফার করছে এবং তা এই দামে কেনাটা কেমন হবে দে বিষয়ে।

Build & Look-

এ ফোনটি দেখতে খুবই সুন্দর এবং একটি ইউনিক ডিজাইনেরও বটে। বেশ প্রিমিয়াম লুক ই দিচ্ছিলো এই ফোন। 

এই ফোনের দুইদিকে রয়েছে Glass Body যাতে দেওয়া হয়েছে Corning Gorilla Glass 5 এর প্রোটেকশন। তবে এই মজবুত প্রোটেকশন থাকা সত্ত্বেও এর বিল্ড ততটাও শক্ত পোক্ত নয়। এর বিল্ড কোয়ালিটি নিয়ে তাই কিছু সংশয় 

রয়েছে। তবে এ বিল্ড কোয়ালিটি খারাপ যে তাও নয়। তুলনা করলে হয়ত সামান্য পিছিয়ে থাকবে তবে তা অবশ্যই কাজ চালিয়ে দেওয়ার মত। 

Sound Quality-

এতে দেওয়া হয়েছে Stereo Speaker যা অবশ্যই খুব ভালো Sound quality হওয়ার একটি কারণ। এর সাউন্ড যথেষ্ট লাউড এবং ক্লিয়ারও। ভালো দিক হলো এতে ফুল সাউন্ডে কোনো ভিডিও বা অডিও প্লে করলেও সাউন্ডটা যথেষ্ট ক্লিয়ার থাকে। তাই খুব ভালো একটি Sound experience পেয়ে যাবেন এ ফোন থেকে। 

Display-

এবার এর ডিসপ্লে নিয়ে আলোচনা করা যাক।

এর ডিসপ্লেটি 6.67 Inch এর একটি Full HD+ ডিসপ্লে যা কিনা IPS নয়, বরং AMOLED Display ছিল। তাই এর ডিসপ্লে অন্যান্য ফোন থেকে অবশ্যই এগিয়ে থাকবে। Amoled Display দেওয়ার জন্য এর color খুব ফুটে উঠছিল যা দেখতে অবশ্যই খুব ভালো লাগে।

পাশাপাশি এর ডিসপ্লে ছিল যথেষ্ট উজ্জ্বল। অন্যান্য ফোন থেকে যা বেশি। ঘরবাড়িতে তো বটেই, ঘরের বাইরেও দিনের বেলাতে ফুল ব্রাইটনেসে এর ডিসপ্লে ভালো পরিমাণ ব্রাইট থাকে যা প্রশংসনীয়। 

এর স্ক্রিনের উপরের দিকের মাঝখানে রয়েছে Single Punch Hole যা খুবই ছোট ছিল। এর কারনে ডিসপ্লে দেখতে খুব ক্লিন ও ভালো লাগছিল। পাশাপাশি এর সাইডের বেজেলও খুব চিকন ছিল। সব মিলিয়ে ডিসপ্লেটা দেখতে প্রিমিয়াম লাগছিল।

এর স্টোরেজ টাইপ হলো UFS 2.2 যা এই বাজেটে স্বাভাবিক এবং অনেকটা ফাস্ট। 

এবার আসা যাক এই ফোনের প্রধান Key feature এ, যা হলো এর ক্যামেরা-

Camera-

এর পিছনের দিকে রয়েছে Quad Camera সেটাপ।

 Main Camera: এর 108 MP Wide Angle এই ক্যামেরাই  এই ফোনের প্রধান আকর্ষণ যা f/1.9 এর। এই ক্যামেরা দিয়ে 

 Wide Angle Camera: এটিতে রয়েছে 8 MP এর 118° এর Ultra Wide Angle Camera যা f/2.2 এর।

 Macro Camera: এটিতে দেওয়া হয়েছে 5 MP এর Macro camera যা f/2.4 এর।

 Depth Sensor: এতে রয়েছে 2 MP এর f/2.4 এর depth sensor। 

 Selfie Camera: এর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে রয়েছে 16 MP এর ক্যামেরা। এর ছবিগুলোও যথেষ্ট ইনফো ক্যাপচার করতে পারে এবং সুন্দর ছবি তোলে। স্বাভাবিকভাবেই সেলফি ক্যামেরায় তোলা ছবি সাধারণত চেহারাকে স্মুথ করে দেয়। যেটা অনেকের কাছেই পছন্দনীয় আবার অনেকের কাছেই নয়। মোট কথা সেলফিগুলো যথেষ্ট ভালো ছিল যা নিয়ে সন্তুষ্ট থাকা যায়।

এর ক্যামেরা পারফরম্যান্স বা ছবির কথা বলতে গেলে বলতে হয় এটি আসলেই দারুন ছবি তুলে। এর ক্যামেরা থেকে মন মতো কালারের ছবি পাওয়া যাবে। আর ছবিতে পর্যাপ্ত ডিটেইলসও থাকে। আর এসব ছবি ফেইসবুক ইন্সটাগ্রাম এ আপলোড এর জন্য একদম উপযুক্ত বলাই যায়৷  আবার এর 108 MP Mode এ তোলা ছবি তুলনামূলক শুধু বেশি Sharp হয়। আর তেমন কোনো পরিবর্তন থাকে না। তবে কিছুক্ষণ পরেই ফোনের পিছনের দিক টা গরম হয়ে যাওয়াটা খেয়াল করতে পারবেন। এটা আসলে স্বাভাবিকই।

আসা যাক এর Ultra Wide Camera তে। এই ক্যামেরাও বেশ ভালো পারফর্ম করছিল। কালারটা সামান্য faded এবং ছবিতে ইনফো কমে গেলেও ছবিগুলো দেখতে ভালোই লাগে। রাতের বেলা Main Camera দিয়েও ভালো মানের ছবি তোলা সম্ভব। ভালো ইনফোই ধরে রাখতে পারে। তবে Night Mode এ তুললে ছবিগুলো আরো লাইট পায় এবং ছবিতে ইনফোও বেড়ে যায়৷ সুতরাং নাইট মোডে বেটার ছবি পাওয়া যায়। এর Macro Camera দিয়েও ভালো মানের ছবি তোলা যায়। অন্যান্য ফোন থেকে এর Macro ক্যামেরা বেটার রেজাল্ট দিয়ে থাকে। 

সব মিলিয়ে এই ফোনের ক্যামেরা পারফরম্যান্স বেশ সন্তোষজনক। এই বাজেটের সেরাই বলা যায়। তবে শাওমি রেডমির ফোনগুলো দিয়ে তোলা ছবিগুলো যেমন একটু smooth হয়ে যায়, এই ফোনের ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে এই ছবিগুলো আবার কারো কারো কাছে ভালো লাগে৷ সাধারণত ফেইসবুক ইন্সটাগ্রামে দেওয়ার জন্য এগুলো বেশি উপযুক্ত।  এর প্রধান আকর্ষণ নিয়ে জানার পর জানা যাক সকল ফোনেরই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি পার্ট প্রসেসর নিয়ে।

Processor – Qualcomm Snapdragon 732G

এটি আমাদের চেনা একটি প্রসেসর। এটি এই বাজেটেরই প্রসেসর এবং এর পারফরম্যান্স ও বেশ ভালো। এটি 8 nm architecture এর তৈরী এবং এর GPU হিসেবে রয়েছে Adreno 618। এই চিপসেটের পারফরম্যান্স এই ফোনেও আশানুরূপ হওয়ার কথা হলেও এই ফোনের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য এর থেকে বেশ কিছু সমস্যা এর দেখা পাবেন। এটি এরকম বাজেটের একটি ফোন থেকে একেবারেই গ্রহনযোগ্য নয়। তবে আশা করা যায় রেডমি এ ব্যাপারটি নিয়ে কাজ করবে। তবে তাই বলে যে পারফরম্যান্স একেবারেই খারাপ তেমনটিও না। PUBG, Call of Duty, Asphalt 9 এসব গেইম আরামসে এবং ভালো গ্রাফিক্সেই খেলতে পারবেন।

Battery-

এর ব্যাটারি হিসেবে দেওয়া হয়েছে 5020 mAh এবং একে চার্জ দেওয়ার জন্য দেওয়া হয়েছে  33 Watt এর Fast Charger। তাই খুব ফাস্ট ফুল চার্জ হয়ে যাবে এই ফোন।

সব শেষে বলতে গেলে এর অপটিমাইজেশন এর সমস্যাটা কে বাদ দিলে এই ফোনের সব ঠিকই রয়েছে। থাকছে একটি অসাধারণ ক্যামেরা যার পারফরম্যান্স ছিল দারুন। তাই এই বাজেটে বেস্ট ক্যামেরা পারফরম্যান্স পেতে চাইলে এই ফোনটি আপনার জন্য খুব ভালো একটি চয়েজ হবে ইনশা আল্লাহ।

REVIEW BREAKDOWN

  • Design:80%
  • Display:80%
  • Software:80%
  • Performance:80%
  • Battery Life:80%
  • Camera:80%
  • Value for Money:70%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *