YouTube shorts কি? youtube shorts কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়

YouTube shorts কি? youtube shorts কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়

টিকটক এর বদৌলতে বর্তমানে অল্প সময়ের ভিডিওসমূহের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। এই ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দিয়ে শর্টস ফিচারটি চালু করে ইউটিউব। ইতিমধ্যে বেশ জনপ্রিয় একটি ইউটিউব ফিচারে পরিণত হয়েছে শর্টস।

সচরাচর ভিডিও আপলোড করে যেমন ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করা যায়, ঠিক তেমনি ইউটিউবে শর্ট ভিডিও থেকেও আয় করার উপায় আছে। ইউটিউবের মূল মনিটাইজেশন ফিচারের চেয়ে ইউটিউব শর্টস থেকে আয় করার বিষয়টি একটু আলাদা। চলুন জেনে নেওয়া যাক ইউটিউব শর্টস কি, কিভাবে ইউটিউব শর্টস তৈরি করবেন ও ইউটিউব শর্টস থেকে আয়ের উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।

ইউটিউব শর্টস কি?

ইউটিউব শর্টস হলো ৬০সেকেন্ড বা তার কম দৈর্ঘ্যের ভার্টিকাল ফরম্যাটের ভিডিও এর সংগ্রহশালা। মূলত টিকটক ও ইন্সটাগ্রাম রিলস এর মতো ফিচারসমূহকে টেক্কা দিতে এই ফিচার ইউটিউব অ্যাপে যুক্ত করে ইউটিউব।

অরিজিনাল শর্ট রেকর্ড বা আপলোড এর পাশাপাশি অন্য ভিডিওর সাউন্ড ব্যবহার করেও শর্টস তৈরি করা যায়।

ইউটিউব শর্টস তৈরির নিয়ম

ইউটিউব শর্টস আপলোড করার একাধিক উপায় রয়েছে। প্রথমত ভার্টিকাল এসপেক্ট রেশিওর ৬০সেকেন্ডের যেকোনো ভিডিও আপলোড করলে, তা শর্টস হিসেবে বিবেচ্য হবে। আবার ইউটিউবের ভিডিওসমূহে থাকা “Create” অপশন ব্যবহার করে উক্ত ভিডিওর সাউন্ড দ্বারা শর্টস তৈরি করা যাবে। এছাড়াও চিরাচরিত নিয়মে ভিডিও রেকর্ড করে আপলোডের সুযোগ তো থাকছেই।

সরাসরি ইউটিউব অ্যাপ থেকে শর্টস তৈরি করতেঃ

  • ইউটিউব অ্যাপে প্রবেশ করুন
  • অ্যাপের ঠিক মাঝখানে থাকা Create (+) বাটনে ট্যাপ করুন
  • Create a Short  এ ট্যাপ করুন
  • ১৫সেকেন্ডের অধিক দৈর্ঘ্যের শর্টস তৈরি করতে উপরে থাকা 15 তে ট্যাপ করুন
  • উল্লেখ্য যে সর্বোচ্চ ৬০সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের শর্টস ভিডিও রেকর্ড করা যাবে
  • চাইলে Speed সিলেক্ট করে ভিডিওর স্পিড বাড়াতে বা কমাতে পারবেন
  • এছাড়াও Timer এ ট্যাপ করে হ্যান্ডস-ফ্রি ভিডিও রেকর্ড করার অপশনও রয়েছে
  • রেকর্ড শুরু করতে ক্যাপচার বাটন ট্যাপ করুন ও রেকর্ড বন্ধ করতে আবার একই বাটন চাপুন
  • ভিডিও রেকর্ড করা হয়ে গেলে Done এ ট্যাপ করুন
  • Next এ ট্যাপ করলে ভিডিও টাইটেল, প্রাইভেসি সেটিংস, ইত্যাদি নির্বাচন করতে পারবেন
  • Select Audience সিলেক্ট করে আপনার ভিডিওর অডিয়েন্স সিলেক্ট করুন
  • আপনার শর্টস পাবলিশ করতে UPLOAD এ ট্যাপ করুন

ইউটিউব শর্টস থেকে আয় করার উপায়

ইউটিউবের সাধারণ ভিডিও থেকে আয় করতে ইউটিউব মনিটাইজেশনে প্রোগ্রামে যুক্ত হতে হয়। তবে ইউটিউব শর্টস ফান্ড এর মাধ্যমে যেকোনো ক্রিয়েটর (শুরুতে মনিটাইজেশন না থাকলেও) আয় করতে পারবেন ইউটিউব শর্টস এর মাধ্যমে।

মূলত শর্টস ক্রিয়েটরদের উৎসাহ প্রদানে এই বোনাস চালু করেছে ইউটিউব। চলুন জেনে নেওয়া যাক শর্টস ফান্ড কি ও কিভাবে শর্টস ফান্ড থেকে যে কেউ আয় করতে পারেন।

শর্টস ফান্ড কি

ইউটিউব শর্টস ফান্ড হলো ১০০মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের একটি ফান্ড, যেখান থেকে ২০২১ ও ২০২২সালের মধ্যে যোগ্য ক্রিয়েটরদের অর্থ প্রদান করা হবে। প্রতি মাসে একজন শর্টস ক্রিয়েটর ১০০ থেকে ১০,০০০মার্কিন ডলার পর্যন্ত শর্টস ফান্ড বোনাস পেতে পারেন।

বাংলাদেশের ক্রিয়েটরদের প্রথমদিকে শর্টস ফান্ড এর বোনাস এর অংশভুক্ত করা না হলেও সম্প্রতি বাংলাদেশকেও শর্টস ফান্ড এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অর্থাৎ কেউ, ইউটিউবের মূল মনিটাইজেশন না থাকলেও শর্টস আপলোড করে আয় করতে পারবেন। শর্টস এর বোনাস নির্ভর করে চ্যানেলের মাসিক ভিউস ও অডিয়েন্সের অবস্থানের উপর। সুতরাং আপনি শর্টস আপলোড করলেই যে টাকা পাবেন এর গ্যারান্টি কেউ দিতে পারবেনা।

শর্টস ফান্ড বোনাস কিভাবে পাবেন?

যেসব ক্রিয়েটর অরিজিনাল শর্টস ভিডিও তৈরি করবেন, তারা শর্টস ফান্ড থেকে বোনাস পেতে পারেন। এমনকি ইউটিউব পার্টনার এর অন্তর্ভুক্ত নয়, এমন চ্যানেলও শর্টস বোনাস পাবে। অর্থাৎ প্রায় যেকেউ ইউটিউব শর্টস থেকে শর্টস ফান্ড এর বোনাস পেতে পারেন।

প্রতি মাসে পূর্ববর্তী মাসের শর্ট এর পারফরম্যান্স উপর ভিত্তি করে যোগ্য ক্রিয়েটরদের শর্টস ফান্ড বোনাস প্রদান করবে ইউটিউব কতৃপক্ষ। সকল শর্টস ভিডিও এর পারফরম্যান্স মেট্রিকস এ যোগ হবে। অর্থাৎ নতুন পুরোনো সকল ভিডিও থেকে শর্টস এর মাধ্যমে আয় সম্ভব।

প্রতি মাসে শর্টস বোনাস পাওয়া চ্যানেলের তালিকা রিফ্রেশ করা হবে। তার মানে আপনি যদি এক মাসে শর্টস বোনাস না পেয়ে থাকেন, তবে পরের মাসে পেতে পারেন।

এবার জানি চলুন কারা কারা ইউটিউব শর্টস ফান্ড এর বোনাস পাবেন। শর্টস ফান্ড এর বোনাস পেতে হলেঃ

  • বিগত ১৮০দিনের মধ্যে চ্যানেলে কমপক্ষে একটি শর্টস আপলোড করা থাকতে হবে
  • চ্যানেলের ইউটিউব কমিনিউটি গাইডলাইন, কপিরাইট রুলস ও মনিটাইজেশন পলিসি মেনে চলতে হবে
  • যেসব চ্যানেলের ভিডিওতে অন্য কোনো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের লোগো বা ওয়াটারমার্ক থাকবে, সেসব চ্যানেলকে বাদ দেওয়া হবে
  • অন্য কোনো ক্রিয়েটরের কনটেন্ট আপলোড করলে কিংবা সিনেমা, বা টিভি শো এর আনএডিটেড ক্লিপস আপলোড করলে সেক্ষেত্রেও উক্ত চ্যানেল শর্টস বোনাস পাবেনা
  • ক্রিয়েটরের বয়স কমপক্ষে ১৩বছর বা তার অধিক হতে হবে

শর্টস বোনাস ক্লেইম করার নিয়ম

পূর্ববর্তী সেকশনে উল্লিখিত নিয়মসমূহ মেনে চললে শর্টস ক্রিয়েটরগণ শর্টস বোনাস পেতে পারেন। কোনো চ্যানেল শর্টস বোনাস পেলে, ইমেইলের মাধ্যমে ও নোটিফিকেশনের মাধ্যমে তা মাসের ৮ থেকে ১০তারিখের মধ্যে জানিয়ে দিবে ইউটিউব কতৃপক্ষ।

উল্লেখ্য যে, ইউটিউব শর্টস বোনাস ক্লেইম করতে ইমেইল ও নোটিফকেশনের দিকে নজর রাখা ব্যাপক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা উক্ত মাসের ২৫তারিখের মধ্যে যদি বোনাস ক্লেইম করা না হয়, তবে বোনাস এক্সপায়ার হয়ে যাবে।

বোনাস এর ইমেইল বা নোটিফিকেশন পেলে “Terms & Conditions” Accept করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি গুগল এডসেন্স একাউন্টের সাথে লিংক করে দিন। ইতিমধ্যে যদি আপনি মনিটাইজেশন প্রোগ্রামের অন্তর্ভুক্ত হয়ে থাকেন, তবে Terms & Conditions একসেপ্ট করলেই বোনাস এডসেন্স একাউন্টে পেয়ে যাবেন।

এডসেন্স একাউন্টের সাথে ইউটিউব চ্যানেল লিংকের প্রক্রিয়া কয়েকদিন সময় নিতে পারেন। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে ইউটিউব থেকে কনফার্মেশন ইমেইল পাবেন।

বোনাস পেমেন্ট উইথড্র

শর্টস ফান্ড বোনাস ক্লেইম করা হয়ে গেলে এডসেন্স থেকে অর্থ তোলা যাবে, অর্থাৎ উইথড্র করা যাবে। এডসেন্স একাউন্ট থেকে উইথড্র রিকুয়েস্ট করলে উক্ত মাসের ২১থেকে ২৬তারিখের মধ্যে পেমেন্ট পেয়ে যাবেন। তবে প্রথমবার এডসেন্স পেমেন্ট উইথড্র রিকুয়েস্ট সাবমিট করলে সেক্ষেত্রে প্রথমে পেমেন্ট ডিটেইলস পূরণ করতে হবে। এজন্য আপনার গুগল একাউন্টে যে নাম সেই একই নামের ব্যাংক একাউন্ট এডসেন্সে একাউন্টে যোগ করতে হবে।

উল্লেখ্য যে, একবার বোনাস ক্লেইম করা হলে উক্ত অর্থ এডসেন্স একাউন্টে জমা থাকবে। এডসেন্স কর্তৃপক্ষ সাধারণত মাসের ২১ তারিখ অটোমেটিক পেমেন্ট সেন্ড করে থাকে। সেক্ষেত্রে সাধারণত ৫ কর্মদিবসে ব্যাংকে টাকা চলে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *